শরীয়তপুরবাসী রিয়াদের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবসে কানাডার শার্লেটাউন সিটি হলে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন

ডেস্ক রিপোর্ট//  কানাডার দশটি প্রভিন্সের সবচেয়ে ছোট প্রভিন্স, প্রিন্স এডওয়ার্ড আইল্যান্ড এর রাজধানী শার্লেটাউন। ছবির মতো সুন্দর এই পর্যটন স্থানটিতে কমবেশি দুইশত বাংলাদেশী বাস করে। বাংলাদেশের বিজয় দিবস ২০২৩ এ প্রথম বারের মতো শার্লেটাউন সিটি হলে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়। প্রিন্স এডওয়ার্ড আইল্যান্ড বাংলাদেশী কমিউনিটির ডাইনামিক সদস্য এ কে এম তাজুল ইসলাম রিয়াদ এর উদ্যোগে, বাংলাদেশী কমিউনিটি সদস্যদের এবং শার্লেটাউন সিটি এর সার্বিক সহযোগিতায় এই মাইলফলক অনুষ্ঠানে শার্লেটাউন সিটি মেয়র ফিলিপ ব্রাউন, বাংলাদেশী কমিউনিটির সিনিয়র সদস্য সুব্রত চৌধুরী ও শফিকুল ইসলাম বাংলাদেশী কমিউনিটির শিশুদেরকে সাথে নিয়ে কানাডা ও বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। এর সাথে স্থানীয় শিল্পী দেবাশীষ বর্মন, রঞ্জনা ব্যানার্জি, মন্জু বেগম, দিহান আহসান, পাপিয়া সরকার, ও সারাহ লিয়াকত এর নেতৃত্বে কানাডা ও বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতে শীতের সোনালী দুপুরটা হয়ে উঠে সুমধুর। উপস্থিত প্রায় শ’খানেক বাংলাদেশীরা ফিরে যায় নাড়ির টানে। সিটি মেয়র ফিলিপ ব্রাউন তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে পাশাপাশি দুই দেশের পতাকা উত্তোলনকে দুই দেশের মধ্যে সংযোগ এবং ঐক্য বৃদ্ধির প্রতীক হিসাবে উল্লেখ করেন। বিশিষ্ঠ প্রবাসী বাংলাদেশী লেখিকা রঞ্জনা ব্যানার্জি সংক্ষেপে বাংলাদেশের ইতিহাস তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ওয়াহিদ চৌধুরী এবং এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে নিয়জিত ছিলেন বাংলাদেশের শরীয়তপুরের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ তমিজ উদ্দিন আহমেদের কনিষ্ঠ পুত্র এ কে এম তাজুল ইসলাম রিয়াদ। অধ্যক্ষ তমিজ উদ্দিন বর্তমান আহমেদ ডামুড্যার পূর্ব মাদারীপুর কলেজ বর্তমান সরকারি আব্দুর রাজ্জাক কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন।
দেশ থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে ছোট্ট এক শহরে দেশের পতাকা উত্তোলনের শুরুটা বাংলাদেশীদের, বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত

Posted on